অবশেষে বিয়ের পিঁড়িতে রেলমন্ত্রী

৬৭ বছর বয়সে এসে ‘ব্যাচেলর’ জীবনের অবসান ঘটাতে যাচ্ছেন তিনি। শিগগিরই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন রেলওয়ে মন্ত্রী মুজিবুল হক। মন্ত্রী ডিসেম্বরেই গাটছড়া বাধবেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিসভার কয়েক সদস্য।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মন্ত্রী বলেন, ‘সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে অনানুষ্ঠানিক আলোচিত হয়েছে। অবশেষে তিনি (রেলমন্ত্রী) বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আমরা খুশি এবং তাকে অভিনন্দন জানিয়েছি।’

আগামী ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে তার নিজ এলাকার মাস্টার্স ও এলএলবি পাত্রীর সঙ্গে বিয়ে হবে। মন্ত্রী বলেন, কুমিল্লার মেয়ে নম্র ভদ্র এবং সুশিক্ষিত পাত্রীকে আমি শেষ বয়সে বিয়ে করবো।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে বেশ ক’জন মন্ত্রী অনুষ্ঠানিকভাবে রেলমন্ত্রীর বিয়ে নিয়ে আলোচনা করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর মিন্টু রোডে মন্ত্রী পাড়ায় রেলমন্ত্রীর জন্য একটি বাড়ি বরাদ্দ দিতে গণপূর্ত মন্ত্রীকে নির্দেশনা দিয়েছেন।

মুজিবুল হক বর্তমান রাজধানীর ন্যাম ভবনে একটি ফ্ল্যাটে বাস করছেন। সংসদ সদস্য হিসেবে তাকে ফ্ল্যাটটি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল।

মন্ত্রীরা জানান, মুজিবুল হকের বিয়ে কথা শুনে প্রধানমন্ত্রী খুশি হয়েছেন। এক মন্ত্রী বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন রেল মন্ত্রীর বিয়ের সিদ্ধান্তে তিনি খুব খুশি। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, মুজিবুল হক এতদিন শুধু ইঞ্জিন ছিলেন, এখন তার সঙ্গে বগি যুক্ত হবে।

এ বিষয়ে রেলমন্ত্রীর মন্তব্য জানতে ফোনে বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। সচিবালয়ে তার ব্যক্তিগত সহকারীও বিয়ে সম্পর্কে কিছু জানাতে অস্বীকৃতি জানান।

আইনজীবী ও রাজনীতিবিদ মুজিবুল হকের জন্ম ১৯৪৭ সালে। এ পর্যন্ত তিনবার তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছে।

১৯৯৮ সালে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদ এবং আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু নব্বইয়ের শেষ দিকে বিয়ে করেন। দুজনেই স্ত্রী মারা যাওয়ার পর বিয়ে করেন।

You Might Also Like