অপরাধী ধরতে সৌদি আরবে পর্নো টোপ!

সৌদি আরবের ধর্মীয় পুলিশের বিরুদ্ধে সাইবার অপরাধে সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের ধরতে টোপ হিসেবে পর্নোগ্রাফি ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। দেশটির অন্যতম প্রভাবশালী পত্রিকা ‘মক্কাহ’ এ অভিযোগ করেছে।
পত্রিকাটির বরাত দিয়ে আল-আরাবিয়া নিউজ জানিয়েছে, সাইবার অপরাধে সন্দেহভাজনদের লোভ দেখাতে ধর্মরক্ষা ও পাপ প্রতিরোধ কমিটি (কমিটি ফর প্রটেকশন অব ভার্চ্যু অ্যান্ড প্রিভেনশন অব ভাইস) অশ্লীল ছবি ব্যবহার করছে। কমিটি ধর্মীয় পুলিশ নামেও পরিচিত।
সৌদি আরবের আসির প্রদেশের তদন্ত ও বিচার ব্যুরো ধর্মীয় পুলিশকে টোপ হিসেবে অশ্লীল ছবি ব্যবহার বন্ধ করতে বলেছে।
গ্রেপ্তার হওয়া সন্দেহভাজনরা তদন্ত ব্যুরোকে বলেছে, অনলাইনে কথোপকথন তারা প্রথমে শুরু করেনি। অপরিচিতদের প্ররোচণাতেই তারা কথোপকথন শুরু করেন। অপরিচিতরা তাদের অশ্লীল ছবি পাঠিয়েছে এবং দেখা করতে বলেছে। যখন তারা দেখা করতে যায়, তখন তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তিরা জানায়, যারা গ্রেপ্তার করেছে তারা ধর্মীয় পুলিশ ছিল, কোনো বেসামরিক নাগরিক ছিল না। অশ্লীল ছবি কোথা থেকে পাঠানো হয়েছে সেটা পুলিশই জানে।
তবে এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে ধর্মীয় পুলিশ। এর মুখপাত্র তারকি আল-শালিল বলেছেন, ‘আমরা সব অপরাধমূলক কর্মকা-ের মোকাবিলা ফৌজদারি আইন ও বিধি অনুযায়ী করে থাকি।’
মক্কাহ পত্রিকায় খবর প্রকাশের পর এক বিবৃতিতে শালিল আরো বলেন, সন্দেহভাজন অপরাধীদের ধরতে ধর্মীয় পুলিশ কখনো অন্যের সাইটের তথ্য জোগাড়ে কোনো সফটওয়্যার ব্যবহার করেনি।
ক্ষমতার অপব্যবহার এবং আলেমদের নিয়ে মিথ্যে খবর প্রকাশের অভিযোগে মক্কাহ ও মারসাদ পত্রিকার বিরুদ্ধে মামলা করেছে ধর্মীয় পুলিশ।

You Might Also Like