অনিয়মের অভিযোগে স্কয়ার হাসপাতালকে জরিমানা

অপরাধযোগ্য অনিয়ম করায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালকে জরিমানা করেছে র‌্যাব পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত।

পান্থপথের স্কয়ার হাসপাতালে বুধবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেলাল উদ্দীনের নেতৃত্বে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করে। অভিযানে সহযোগিতা করেন র‌্যাব-২ এর সদস্যরা।

র‌্যাব-২ সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব জানতে পারে গুরুতর কয়েকটি পয়েন্টে স্কয়ার হাসপাতালে অনিয়ম হচ্ছে। কিছুদিন ধরে র‌্যাবের গোয়েন্দা দল তা তদন্ত করে দেখেছে। এতে অনিয়মের সত্যতার প্রমাণ মেলে। এরপর বুধবার দুপুরের দিকে ওই হাসপাতালে অভিযান চালানো হয়। মূলত কয়েকটি কারণে ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

প্রথমত, স্কয়ার হাসপাতালের আইসিইউ, সিসিইউ, এইচডিইউ, এনআইসিইউ এবং ডায়ালাইসিস ইউনিটের লাইসেন্স নেই। হাসপাতালের ক্লিনিক ডিভিশন ও ল্যাবের লাইসেন্স থাকলেও তা মেয়াদোত্তীর্ণ। এ সব কারণে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

দ্বিতীয়ত, হাসপাতালের ভেতরে তিনটি ফার্মেসি রয়েছে। এসব ফার্মেসির ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন রেজিস্ট্রেশন (ডিএআর) এবং প্রেমিসিস লাইসেন্স পাওয়া যায়নি। ড্রাগ অ্যাক্টের বিধানে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

তৃতীয়ত, ২০১৪ সালের জুনে হাসপাতালের ব্লাড ব্যাংকের লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ হয়েছে। নবায়ন করেনি ওই লাইসেন্স। তাই এ অপরাধে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

চতুর্থত, বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড ও টেস্টিং ইসস্টিটিউটের (বিএসটিআই) অনুমোদন না নিয়ে কেক তৈরি করায় স্কয়ারের ক্যাফেটেরিয়াকে ১ লাখ ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযানের সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়াও বিএসটিআই’র একজন, ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের দুইজন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তিনজন এবং ঢাকা সিটি করপোরেশনের স্যানিটারি বিভাগের দুই কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

You Might Also Like